তরুণ আকর্ষণীয় রাশিয়ান নারীরা ফুটবলপ্রেমীদের যৌনসঙ্গী হওয়া নিষেধ

রাশিয়ান নারী
রাশিয়ান নারী
চোখ ধাঁধানো আলোর ঝলকানিতে রাশিয়া বিশ্বকাপ এর পর্দা উঠতে মাত্র কয়েক ঘণ্টা বাকি! এরই মধ্যে হাজারো ফুটবলপ্রেমী পা রেখেছেন রাশিয়ায়। আয়েশ করে খেলা উপভোগ করতে চান তারা। কিন্তু উন্মাদনায় যেনো কোন রাশিয়ান নারী ফুটবল প্রেমীদের শয্যাসঙ্গী না হয় এদিকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির সংসদ সদস্য তামারা প্লেতনেভা।

রাশিয়ার স্থানীয় গণমাধ্যমে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তামারা বলেন, আমি আশা করব রাশিয়ায় ভিনদেশী ফুটবল প্রেমীদের সাথে রাশিয়ান কোন নারী ডেট করবে না, এমনকি তরুণ রাশিয়ান নারীদের আকর্ষণে অনেক ভিনদেশীর মন গলে গেলেও তারা যেনো যৌন সম্পর্ক থেকে বিরত থাকে।

রাশিয়ার সংসদ সদস্য তামারা প্লেতনেভা

প্রথমবারের মত রাশিয়ায় এত বড় আয়োজনের হুমকি স্বরূপ তিনি রাশিয়ান নারীদের অনাকাঙ্ক্ষিত যৌন সম্পর্কে উল্লেখ করেন। যা আয়োজকদের ভাবাতে পারে বেশি।

এর আগে ১৯৮০ সালে রাশিয়ার মস্কোতে অলিম্পিক খেলার আয়োজন করার পর স্থানীয় অনেক রাশিয়ান নারী ভিনদেশি খেলা প্রেমীদের প্রেমে হাবুডুবু খেয়ে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পরে। আর সেই সময় মস্কোতে অস্বাভাবিক হারে পতিতাবৃত্তিও বেড়ে যায়।

তবে সবচেয়ে শঙ্কার বিষয় হলো, রাশিয়ান নারীদের সাথে অবৈধ শারীরিক সম্পর্কের পর অনেক সময় অবৈধ মাতৃত্বের হার বৃদ্ধি পেয়ে যায় দেশটিতে। এই ধরণের ঘটনা একটা দেশের জনসংখ্যার ওপর নেতিবাচক প্রভাব পরে বলে তার আশঙ্কা।

তাই ওই সমস্ত শিশুদের জন্মের পর রাশিয়া রাষ্ট্রের দায়িত্ব নেয়াটা দেশটির জন্য হুমকি বলে তিনি মনে করেন।

বিশ্বজুড়ে যৌন হয়রানির বিপক্ষে হ্যাশট্যাগে- ‘মি টু’’র আয়োজনকে বিরোধীতা করে তিনি বলেন, আমেরিকা এবং ইউরোপের কোন বিষয় আমরা অনুসরণ করি না। আমরা মনে করি কোন নারীর নিজে না চাইলে এমন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here