ষড়যন্ত্রের ফাঁদে শাকিব খান এর ‘সুপার হিরো’ এ নিয়ে যা ছবির পরিচালক প্রযোজক ও চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা ( ভিডিও)

shakib khan
super hero

ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খান। বর্তমানে দেশের পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গেও নিজের করা ছবি নিয়ে সমানতালে বিচরণ করছে। কিন্তু এটিই যেন কারো কারো সহ্য হচ্ছে না। আর তাই তার কোন ছবি মুক্তির সময় এলেই যেন কোন এক পক্ষ নানান ভাবে ষড়যন্ত্রের ফাঁদে আটকে দেয়। এর সর্বশেষ উদাহরণ গেলো বৈশাখের ভারতীয় ছবি চালবাজ। কিন্তু এবার আসছে ঈদে মুক্তি পেতে যাওয়া বাংলাদেশের ‘সুপার হিরো’ ছবির মুক্তি ঠেকাতে এরই মধ্যে তৎপরতা শুরু হয়ে গেছে।

চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড যাতে ‘সুপার হিরো’ ছবির ছাড়পত্র না দেয়, তার জন্য তথ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব বরাবর চিঠি দিয়েছেন মেসার্স নিপা এন্টারপ্রাইজের কর্ণধার সেলিনা বেগম। এখানে তিনি লিখেছেন, ‘সুপার হিরো’ নামক ছবিটির জন্য সরকারি অনুমতি (ওয়ার্ক পারমিট) না নিয়ে অস্ট্রেলিয়ায় শুটিং করা হয়েছে। সরকারি অনুমতি ব্যতীত সরকারের রাজস্ব ও ভ্যাট ফাঁকি দিয়ে অবৈধ পথে দেশ থেকে টাকা নিয়ে গত ২২ জানুয়ারি থেকে ১০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ায় ছবিটির শুটিং করা হয়েছে।

চিঠিতে আরও উল্লেখ করা হয়, আগামী ঈদে ছবিটি মুক্তির প্রস্তুতি নিচ্ছে। এতে করে সাধারণ প্রযোজকেরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। তাই ‘সুপার হিরো’ ছবিটি নিয়ম না মানার কারণে সেন্সর সনদ পাওয়ার যোগ্যতা হারিয়েছে। তথ্যসচিব বরাবর লেখা এই চিঠিতে বলা হয়, ‘সুপার হিরো’ ছবির বিরুদ্ধে সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দেওয়াসহ অনুমতি না নিয়ে বিদেশে শুটিং করার অভিযোগ তদন্ত করে যেন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। ৩ মে সেলিনা বেগমের স্বাক্ষর করা একটি চিঠি তথ্য মন্ত্রণালয়ে জমা পড়েছে।

‘সুপার হিরো’ ছবির পরিচালক আশিকুর রহমান বলেন, ‘দেখুন, যে অভিযোগ করা হয়েছে, সে ব্যাপারে প্রযোজক ব্যবস্থা নেবেন। ছবির শুটিং শেষ। আমি এখন সম্পাদনা নিয়ে ব্যস্ত।’

ছবিটি প্রযোজনা করছে হার্টবিট প্রডাকশন। এই প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার তাপসী ঠাকুর প্রথম আলোকে বলেন, ‘অবশ্যই আমরা প্রয়োজনীয় সব অনুমতি নিয়ে কাজ করেছি। আমি সরকারকে ফাঁকি দিইনি। কোনো অন্যায় করিনি। যেসব অভিযোগ শুনছি, তা পুরোপুরি ভিত্তিহীন।’

তাপসী ঠাকুর আরও বলেন, ‘আমার ছবির কাজ তো এখনো শেষ হয়নি। যখন চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডে জমা দেব, তখন অবশ্যই প্রয়োজনীয় সব অনুমতির কাগজসহ জমা দেব। পানি না দেখে মোজা খুললে তো হবে না!’

তাঁর বিরুদ্ধে শত্রুতা করা হচ্ছে, এমন অভিযোগ করে তাপসী ঠাকুর বলেন, ‘যেহেতু আমার ছবিটি ঈদে মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা করছি, তা জানাজানি হওয়ার পর একটি মহল এই মুক্তি ঠেকাতে উঠেপড়ে লেগেছে। তথ্য মন্ত্রণালয়ে একজন নারী যে চিঠি দিয়েছেন, তা আপনার কাছ থেকেই শুনেছি। আমি বলব, কেউ নিজেদের স্বার্থ উদ্ধারের জন্য এই তৎপরতা চালাচ্ছে।’

নিপা এন্টারপ্রাইজ এবং প্রযোজক ও পরিবেশক সেলিনা বেগমের ব্যাপারে খোঁজ নিতে গিয়ে জানা যায়, এই নামে কোনো প্রতিষ্ঠান কিংবা প্রযোজকের ব্যাপারে কেউ কিছু বলতে পারেনি। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান বলেন, ‘কে ইনি? কয়টা ছবি বানাইছে? কী কী ছবি বানাইছে? এই নামে কাউকে চিনি বলে তো মনে করতে পারছি না।’

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিবেশক সমিতির সভাপতি, চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের অন্যতম সদস্য ও মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহের স্বত্বাধিকারী ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেন, ‘এই নামে আমি কাউকে চিনি না।’

ভিডিওঃ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here