অ্যাভেঞ্জার্সের সঙ্গে পাসওয়ার্ড তুলনা আর তামিল কপি নয়: শাকিব খান

Shakib Khan Password Movie
Shakib Khan Password Movie

দেশের তারকা অভিনেতা শাকিব খান চলচ্চিত্রের ক্যারিয়ারে সম্প্রতি ২০ বছর পূর্ণ করলেন। একযুগের বেশি সময় ধরে একাই শাসন করছেন ঢাকাই ইন্ডাস্ট্রি। অভিনয়ের পাশাপাশি প্রযোজনায় করেছেন কয়েকটি ছবিতে। এবারের ঈদে তার প্রযোজিত ‘পাসওয়ার্ড’ ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে।

সম্প্রতি এই ছবি নিয়ে প্রত্যাশার কথা জানাতে গিয়ে শাকিব খান বললেন, সবসময় এটাই মানি, কাজ ভালো হলে সেটা সফল হবেই। কেউ আটকাতে পারবে না। ফিল্ম লাভার যারা আছে প্রত্যেকের মনের মধ্যে ‘পাসওয়ার্ড’ নাড়া দেবে। বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রি যেখানে নিভুনিভু অবস্থা সেই ইন্ডাস্ট্রিতে দাঁড়িয়ে বিশ্বমানের ছবি উপহার পেতে যাচ্ছে দর্শক। শুধু বলবো, ঈদের সময় ‘পাসওয়ার্ড’ দেখেন। তারপর নিজের কাছে নিজেই প্রশ্ন করেন এই অচল অবস্থায় এমন করতে পারাটা কতটা সাহসী উদ্যোগ। তাই বলে আবার ‘অ্যাভেঞ্জার্স’-এর সঙ্গে আমার ছবির তুলনা করবেন না। কারণ ওই বাজেটের পরিমাণে ‘পাসওয়ার্ড’ তৈরি হয়নি। আমারটা আমার মতো করে দেখেই আলোচনা-সমালোচনা করুন।

Shakib Khan Password
Shakib Khan Password

‘পাসওয়ার্ড’ এর গল্প এবং মাল্টিকাস্টিং নিয়ে তিনি বলেন, এটা একটা থ্রিলিং স্টোরি। আমি চেষ্টা করেছি ছবিতে যারা অভিনয় করেছেন প্রত্যেককে ফোকাস করতে। ভিলেনদের ফোকাস করেছি। মিশা ভাইকে আগে দেখলে মনে হতো বিরক্তিকর ভিলেন! একই সংলাপ, একই ডেলিভারি। কিন্তু ‘পাসওয়ার্ড’ দেখে মনে হবে, ভিলেনের প্রেজেন্টেশন এমনই হওয়া উচিত। আরেকটা চরিত্র হিরো ইমন, তাকে ফোকাস করার চেষ্টা করেছি। এই ছবির পর ইমনকে নিয়ে অভিনয় প্রধান ছবির জন্য অনেকেই চিন্তা করবে। হিরোইন বুবলী তথাকথিত হিরোইনের মতো কাজ করেনি। দর্শকই বলবে, মাই গড এই বুবলীকে তো আগে দেখিনি ভাই। সবাইকে ফোকাস হয়েছে। এমন না যে, শুধু আমি ফোকাস হয়েছি। আমি চেয়েছি, আমার পাশাপাশি আরো স্টারডম বাড়ুক।

Shakib Khan Password Movie
Shakib Khan Password Movie

এছাড়াও তামিল, তেলেগু থেকে ‘পাসওয়ার্ড’ কপি সমালোচনা প্রসঙ্গে শাকিব খান বলেন, তুমি আজকে জিন্সের সঙ্গে ব্লাক কালারের টিশার্ট পরেছো দেখতে ভালো লাগছে। তোমরাটা দেখে আরেকজন পরতেই পারে! একই রঙের পোশাকে তোমাকে তোমার মতো লাগবে, যে তোমাকে দেখে পরবে তাকে তার মতো লাগবে। বিষয়টা এভাবেই বুঝতে হবে। যারা পাসওয়ার্ড ছবিকে কপি বলছে, তারা সারাজীবন চেষ্টা করলেও কপি করা মিলাইতে পারবে না। ছবি দেখার পর মনে করবে, এ কি হইলো? আমার ‘ভাইজান এলো রে’ ঈদের সময় কলকাতায় ব্যাপক চলছে। সেখানকার পত্রপত্রিকায় এই খবর এসেছে। ওই ছবি আর ‘জড়ুয়া ২’ প্রায় একই ধরণের গল্প। দেখে কেউ মনে করেছেন কপি ছবি? ভাইজানের উজান ক্যারেকটার তো জড়ুয়াতে ছিলোই না। কিছু বোদ্ধা আছেন তাদের জ্ঞান ভাণ্ডার সাগরের মতো বিশাল, তাদের কাছে কেমন লাগবে আমি জানিনা। কিছু বোদ্ধা থাকেই, যারা ভালোর মধ্যে খুঁত ধরতে যায়। আমি ওসব বোদ্ধাদের ধার ধারিনা। সালমান খানের ‘ওয়ানটেড’, ‘কিক’, ‘ডাবাং’ তো বোদ্ধাদের ছবি না। কিন্তু এগুলো সর্বমহলে প্রশংসা পেয়েছিল। পাসওয়ার্ডও তেমন হবে, দেখে নিও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here