কিংবদন্তি সঙ্গীতশিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর আকস্মিক মৃত্যুতে গভীর শোক

Ayub Bachchu
Ayub Bachchu

জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী আইয়ুব বাচ্চু মৃত্যুবরণ করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। বৃহস্পতিবার সকালে নিজ বাসভবনে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন তিনি। রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে নেয়ার পর ৯টা ৫৫ মি‌নিটে ডাক্তাররা তা‌কে মৃত ব‌লে ঘোষণা ক‌রেন। তার আকস্মিক এই মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমেছে সঙ্গীতায়নে। পাশাপাশি দেশের সর্বস্তরের মানুষ গভীরভাবে শোক প্রকাশ করছে।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় স্কয়ার হাসপাতালের মেডিক্যাল সার্ভিসের পরিচালক মির্জা না‌জিমউদ্দিন সাংবা‌দিক‌দের জানান, সকাল সাড়ে ৮টায় তার হার্ট অ্যাটাক হয়। সোয়া ৯টায় ড্রাইভার তা‌কে হাসপাতা‌লে আনেন। সকাল ৯টা ৫৫ মি‌নিটে ডাক্তাররা তা‌কে মৃত ব‌লে ঘোষণা ক‌রেন। ড্রাইভা‌রের বরাত দি‌য়ে মির্জা না‌জিম উদ্দিন ব‌লেন, হার্ট অ্যাটা‌কের পর তার মুখ থে‌কে ফেনা উঠ‌তে থা‌কে। দীর্ঘদিন ধ‌রেই হৃদ‌রো‌গে ভুগ‌ছি‌লেন এ শিল্পী। সপ্তাহ দুয়েক আগেও একবার হৃদ‌রো‌গে আক্রান্ত হ‌য়ে ডাক্তারের শরণাপন্ন হন। আগের পরীক্ষায় তার হার্টের কর্মক্ষমতা ৩০ ভাগে নেমে এসেছিল ব‌লে জানা‌নো হয় হাসপাতা‌লের তরফ থে‌কে।

আইয়ুব বাচ্চুর প্রতি সর্বস্তরের মানুষের শেষ শ্রদ্ধা জানানোর জন্য কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে তার মরদেহ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত রাখা হবে। এরপরে তার প্রথম নামাজে জানাজা শুক্রবার বাদ জুম্মা জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে। শ্রদ্ধা ও জানাজা শেষে মরদেহ স্কয়ার হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হবে। শনিবার চট্টগ্রাম মহানগরীর মাদারবাড়ি জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে দ্বিতীয় জানাজার নামাজের পর মায়ের কবরের পাশে দাফন করা হবে এই কৃতি শিল্পীকে।

বাংলা ব্যান্ড সংগীতের কিংবদন্তি আইয়ুব বাচ্চু জন্মেছিলেন ১৯৬২ সালের ১৬ আগস্ট। চট্টগ্রামে। সংগীতশিল্পী পরিচয়ের বাইরে তিনি একাধারে গায়ক, লিডগিটারিস্ট, গীতিকার, সুরকার। সঙ্গীত জগতে তার যাত্রা শুরু হয় ‘ফিলিংস’-ব্যান্ডের মাধ্যমে ১৯৭৮ সালে। অত্যন্ত গুণী এই শিল্পী তার শ্রোতা-ভক্তদের কাছে এবি (AB) নামেও পরিচিত। তার ডাক নাম রবিন।

তার মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here